Bengoli English Arabic

জামিয়ার দানের খাতসমূহ
জামিয়ার নির্দিষ্ট কোন আয়ের উৎস না থাকায় সর্বশক্তিমান আল্লাহর ওপর ভরসা করে ও জনসাধরণের সাহায্য-সহযোগিতা নিয়েই জামিয়ার বহুবিধ পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হয়। সুষ্ঠুভাবে ব্যয় নির্বাহের সুবিধার্থে জামিয়ার কয়েকটি ব্যয়ের খাত উল্লেখ করা হল।

সাধারণ খাত
এ তহবিলে এককালীন দান, মাসিক চাঁদা ইত্যাদি গ্রহণ করা হয় এবং উক্ত তহবিল হতে শিক্ষক-কর্মচারী বেতন, অফিস খরচ ও বিদ্যুৎ-টেলিফোন বিল ইত্যাদি খাতে ব্যয় হয়ে থাকে।
গোরাবা খাত
এ তহবিলে যাকাত, মান্নত, সদকা, ফেতরা, কাফফারা ও কুরবানীর চামড়া ইত্যাদি গ্রহণ করা হয়। এ তহবিল হতে এতীম অসহায় ছাত্রদের খাওয়া, চিকিৎসা পোষাক ইত্যাদিতে ব্যয় হয়।
তা‘মীর (নির্মাণ) খাত
এ তহবিলের অর্থ জামিয়ার গৃহ নির্মাণ ও মেরামত কাজে ব্যয় হয়। বর্তমানে (দক্ষীণ পার্শ্বের ছাত্রাবাসের ৫ম তলার নির্মাণ কাজ চলছে।) এ তহবিলে মুক্ত হস্তে দান করার জন্য দ্বীন দরদী সবার নিকট আবেদন জানান যাচ্ছে।
কুতুবখানা খাত
এ তহবিলের অর্থ জামিয়ার জন্য কিতাব ক্রয়ে ব্যয় হয়। জামিয়ার কুতুবখানায় ইসলামের ইতিহাস, হাদীস শাস্ত্র, ফেকাহ শাস্ত্র এবং তাফসীর শাস্ত্রসহ বিভিন্ন শাস্ত্রের আধুনিক এবং প্রাচীণ গ্রন্থের বিপুল ভাণ্ডার রয়েছে। এখান থেকে জামিয়ার ছাত্রদেরকে লেখা-পড়ার জন্য কুরআন-হাদীস ও মূল কিতাবসহ ব্যাখ্যাগ্রন্থ ১ বছরের জন্য প্রদান করা হয়। জামিয়ার আসাতিযায়ে কেরামকেও মুতালাআর (গবেষণা) জন্য জামিয়ার লাইব্রেরী হতে কিতাব প্রদান করা হয়।
প্রচার খাত
এ তহবিলের অর্থ অত্যাবশ্যকীয় ধর্মীয় বই-পুস্তক প্রণয়ন, প্রকাশনা, প্রচার-পত্র, বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল ইত্যাদি কাজে ব্যয় করা হয়।

একটি আবেদন
জামিয়া হোসাইনিয়া ইসলামিয়া আরজাবাদ, একটি খালেছ ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও মুহতামিম মাওলানা শামছুদ্দীন কাসেমী রহ. আজ আর আমাদের মাঝে নেই। তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রম ও ত্যাগ তিতিক্ষায় গড়ে ওঠা এই প্রতিষ্ঠানটির অনেক কর্মসূচী আজও অসম্পূর্ণ রয়ে গেছে। এটি আজ আমাদের সকলের একটি আমানত। এর সার্বিক উন্নয়নে অংশগ্রহণ করা আমাদের সকলেরই নৈতিক দায়িত্ব।
জামিয়ার গোরাবা তহবিল হতে এতিম, গরীব ও মেধাবী ৮৫০ জন ছাত্রকে ফ্রি খোরাকী প্রদান করা হয়। গোরাবা তহবিল হতে এতিম, গরীব ছাত্রদেরকে ফ্রি খোরাকীর পাশাপাশি ঔষধ পথ্য ও পোষাকাদী সাধ্যানুসারে দেয়া হয়ে থাকে।
জামিয়ার মাসিক গড় ব্যয় ১৬,৫০,০০০ (ষোল লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা। কিন্তু জামিয়ার আয়ের কোন স্থায়ী বা নির্ধারিত উৎস নেই। ধর্মপ্রাণ মুসলমান ভাই-বোনদের আর্থিক সাহায্য সহযোগিতাই এর আয়ের একমাত্র উৎস।
তাই ধর্মপ্রাণ মুসলমান ভাই-বোনদের খেদমতে আবেদন, জামিয়ার তহবিলে সাধারণ ও এককালীন দান, বার্ষিক ও মাসিক চাঁদা, যাকাত, ফেৎরা, সাদক্বা, কাফফারা ইত্যাদি সাহায্য করে গরীব ও এতীম ছাত্রদের শিক্ষার পথকে সুগম করে সদক্বায়ে জারিয়ার অশেষ সওয়াব হাসিল করুন।

ব্যাংক একাউন্ট
জামিয়া হোসাইনিয়া ইসলামিয়া আরজাবাদ
সোনালী ব্যাংক
মিরপুর-১ সেকশন শাখা, ঢাকা
চলতি হিসাব নং-
সাধারণ- ২০০০১৭২৯৭
গোরাবা- ২০০০২৯৮০৯

আরজাবাদ জামে মসজিদ
জামিয়ার শিক্ষক-ছাত্র ও এলাকার মুসল্লীবৃন্দের নামায আদায়ের সুবিধার্থে মাদরাসা সংলগ্ন আরজাবাদ জামে মসজিদ নামে একটি ৬ তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট বিশাল মসজিদ রয়েছে। যার দৈর্ঘ ১২০ ফুট ও প্রস্থ ১০০ ফুট। মসজিদের ১ম তলায় একসঙ্গে ১৬৫০জন মুসল্লী নামায আদায় করতে পারেন। (বর্তমানে মসজিদের ২য় তলার নির্মাণ কাজ চলছে। ২য় তলার অবশিষ্ট কাজ সম্পন্ন করতে প্রায় ৩৫,০০,০০০ (পয়ত্রিশ লক্ষ) টাকার প্রয়োজন।)
এ কাজ সম্পাদনে সাহায্য করতে দানশীল মুসলমান ভাই-বোনদের প্রতি মসজিদ কমিটি জোর আবেদন করছে। নিম্নে মসজিদের একাউন্ট নাম্বার প্রদত্ত হল-

আরজাবাদ জামে মসজিদ
আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
মিরপুর ব্রাঞ্চ ঢাকা
কোড নং-৫৭০২০৯
মুদারাবা সেভিং একাউন্ট নং- ২১১১২০০১৮৯১৩