Bengoli English Arabic

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

জামিয়ার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

  • সাহাবায়ে কিরাম, আইম্মায়ে মুজতাহিদীন, আকাবিরীনে উম্মত তথা সলফে সালেহীনের পদাঙ্ক অনুসরণ করে কুরআন-হাদীসের পরিপূর্ণ শিক্ষা প্রদান করা।
  • এমন এক জামাআত আলেম সৃষ্টি করা যাদের আমল-আখলাক, চাল-চলন সুন্নাতে নববীর নমুনা হবে এবং সাহাবায়ে কিরাম ও আকাবিরীনে উম্মতের স্বাথর্ক উত্তরসূরী হিসেবে স্বীয় দায়িত্ব পালনে তারা সক্ষম হবে। ইসলামের ওপর যুগ সৃষ্ট প্রশ্ন ও সমস্যাবলীর সমাধান এবং ইসলামের সুমহান শিক্ষাকে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরতে সক্ষম হবে। সর্বোপরী, কুরআন-হাদীসের সর্বোচ্চ শিক্ষাদানের মাধ্যমে অতীতের বুজুর্গানে দ্বীনের পদাঙ্ক অনুসারী খোদাভীরু একদল যুগোপযোগী হক্কানী আলেম তৈরী করা।
  • বুনিয়াদী শিক্ষার মাধ্যমে শিশু ও কিশোরদেরকে ইসলামী ছাঁচে গড়ে তোলা।
  • আরবী ও দ্বীনি ইলমসমূহ তথা করআন মাজীদ, হাদীস শরীফ এবং দ্বীনি ইলমের সহায়ক ইলমসমূহ যথা তাফসীর, উসূলে তাফসীর, উসূলে হাদীস, উসূলে ফিকাহ, আরবী সাহিত্য, বালাগাত, নাহু-ছরফ (আরবী ব্যাকরণ) মানতেক, ফালসাফা ইত্যাদি ইলমসমূহের শিক্ষা প্রদান করা। এমন সব ইলমের শিক্ষা প্রদান করা যা আরবী ভাষায় জ্ঞানার্জন অথবা দ্বীন ইসলাম প্রচারের সহায়ক ও পরিপূরক বলে বিবেচিত হয়। যথা- বাংলা, উর্দূ, ফার্সী, ইতিহাস, ধর্মতত্ব ও বিভিন্ন মতবাদসমূহের অধ্যায়ন। প্রয়োজনীয় অংক শাস্ত্র, সমাজ-বিজ্ঞান, রাষ্ট্র বিজ্ঞান ও ইংরেজী ভাষা শিক্ষা দান।
  • খ্রিস্টান মিশনারী, কাদিয়ানী, বাহাই, মওদুদীবাদ এবং অন্যান্য বাতিল ফেরকাসমূহের স্বাথর্ক মুকাবিলার উদ্দেশে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে একদল সচেতন আলেম গড়ে তোলা।
  • সাহিত্যের ময়দানে অপসংস্কৃতির মুকাবিলায় আলেমদের মধ্যে হতে একদল কলম সৈনিক গড়ে তোলা এবং লেখনী ও বক্তৃতার মাধ্যমে ইসলাম প্রচার ও দ্বীনি মূল্যবোধ সংরক্ষণের মহান দায়িত্ব আঞ্জাম দেয়ার ব্যবস্থা করা। দ্বীনি তালিম ও তাবলীগের মাধ্যমে মুসলিম সমাজে ইসলামের স্বর্ণ যুগ তথা খায়রুল কুরুন এবং অতীতের বুজুর্গানে দ্বীনের অনুসরণ ও অনুকরণে ইসলামী আখলাক আমল ও দ্বীনি প্রেরণা সৃষ্টি করা। এবং বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার, হক্বের অতন্দ্র প্রহরী একদল সংগ্রামী আলেম তৈরী করা।
  • শিক্ষার্থীদের কর্মজীবনে আত্মনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশে কুটির শিল্প, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, কারিগরি ও চিকিৎসা বিদ্যা শিক্ষা দান এবং আর্ত ও দুস্থ মানুষের সেবার প্রেরণা সৃষ্টির উদ্দেশে জামিয়া সংলগ্ন একটি দাতব্য চিকিৎসালয়ের ব্যবস্থা করা।
  • ইসলামী ইলমসমূহের সুগভীর জ্ঞান সম্পন্ন আলেম তৈরীর উদ্দেশে একটি গবেষণাগারের ব্যবস্থা করা।
  • নৈশকালীন দ্বীনি শিক্ষার ব্যবস্থা চালু করার মাধ্যমে আধুনিক শিক্ষিতদের দ্বীনি শিক্ষা প্রদানে সুযোগ সৃষ্টি করা।
  • ইলমে দ্বীনের প্রচারের উদ্দেশে বিভিন্ন স্থানে মাদরাসা ও মক্তব প্রতিষ্ঠা করা এবং প্রতিষ্ঠিত মাদরাসা ও মক্তবের শিক্ষার মান উন্নত করার উদ্দেশে জামিয়ার সাথে সংযুক্ত করা। বিভিন্ন স্থানে ইসলামী পাঠাগার কায়েম করা এবং সাধ্যমত তাতে সাহায্য করা।